1. mohib.bsl@gmail.com : admin : Md Mohibbullah
  2. editor@barisalerkhobor.com : editor :
রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ১০:৫৫ পূর্বাহ্ন

সরকারি পুকুরের মাছ চুরি নিয়ে সংঘর্ষে আহত ৮, গ্রেফতার ৭

  • Update Time : রবিবার, ১৬ জুন, ২০২৪
  • ১৩ Time View

নাটোরের বড়াইগ্রামে মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির নামে ইজারা নেওয়া পুকুরের মাছ চুরি ও বিষাক্ত ট্যাবলেট দিয়ে অবশিষ্ট মাছ মেরে ফেলাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে কমপক্ষে আটজন গুরুতর আহত হয়েছেন।

শনিবার সন্ধ্যায় উপজেলার চান্দাই করিম খাঁর মোড়ে এ সংঘর্ষ ঘটে। পরে পুলিশ উভয়পক্ষের ৭ জনকে গ্রেফতার করে রোববার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠিয়েছে।

এ ঘটনায় আহতদের মধ্যে চান্দাই গ্রামের মতিউর রহমান সরকারের ছেলে হাফিজুর রহমান সজিব (৩৪) ও মিরন সরকারের ছেলে আশিক সরকারকে (২২) রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং আকতারের ছেলে সাহেব আলী প্রামাণিক (৫৫), জাহিদুল ইসলাম (৫২) ও নায়েব আলী (৫০), সাহেব আলীর ছেলে সাকিব হোসেন (২২), লুৎফর রহমানের ছেলে উজ্জ্বল মোল্লা (৫০) ও জাহিদুল ইসলামের ছেলে সুইট হোসেনকে (৩০) বড়াইগ্রাম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় পালটাপালটি মামলা হলে পুলিশ আহত সাহেব আলী প্রামাণিক, জাহিদুল ইসলাম, নায়েব আলী, সাকিব হোসেন, উজ্জ্বল মোল্লা ও সুইটসহ অপরপক্ষের ফিরোজ হোসেন নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে।

স্থানীয়রা জানান, চান্দাই গ্রামে ২ দশমিক ৫১ একর জলকরের একটি সরকারি খাস পুকুর পারকোল দক্ষিণপাড়া মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির সভাপতি কসলেম উদ্দিন ইজারা নেন। পরে তিনি চান্দাই গ্রামের সাহেব আলীসহ কয়েকজনকে নিয়ে পুকুরে মাছ চাষ করেন। শুক্রবার রাতে ওই গ্রামের হাফিজুর রহমান সজিব ও মিরন সরকার লোকজন নিয়ে পুকুরের মাছ মেরে নেন। পরে তারা বিষাক্ত ট্যাবলেট দিয়ে পুকুরের অবশিষ্ট মাছও মেরে ফেলেন। এক পর্যায়ে পুকুরের পাহারাদার দেখে ফেললে তারা পালিয়ে যান।

শনিবার এ নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা দেখা দেয়। পরে সন্ধ্যায় সজিব ও মিরন লোকজনসহ কয়েকটি মোটরসাইকেলে চান্দাই করিম খাঁর মোড়ে গিয়ে সাহেব আলীর ছেলে সাকিবকে তুলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। এ সময় বুঝতে পেরে সাকিবের স্বজনরা এগিয়ে এলে সজিবের লোকজন চাপাতি, হাঁসুয়া, চাইনিজ কুড়াল দিয়ে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে ছয় জনকে জখম করেন। পরে আরও লোকজন এগিয়ে এসে সংঘর্ষে এসে পালটা হামলা করলে হাফিজুর রহমান সজিব ও মরিন সরকারের ছেলে আশিক আহত হন।

বড়াইগ্রাম সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শরীফ আল রাজীব জানান, এ ঘটনায় উভয়পক্ষই মামলা দায়ের করেছে। এজাহার নামীয় আসামি হওয়ায় আহতদের ছয়জনকে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেওয়ার পর আটক করা হয়েছে। এছাড়া অপরপক্ষের আরেকজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বর্তমানে পরিবেশ স্বাভাবিক রয়েছে।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved ©
Theme Customized By BreakingNews
Optimized by Optimole